সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি এ ব্যাপারে জানতে সবাই আগ্রহী। বিশেষ করে যখন শিশু সন্তানের নাম রাখার প্রয়োজন হয় তখন সিদরাতুল মুনতাহা আয়াত নাম রাখা যাবে কিনা এ ব্যাপারে চিন্তার মধ্যে পড়ে যান।

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি

সিদরাতুল মুনতাহা অবশ্যই অনেক সুন্দর একটি শব্দ। আজকে আমরা এই আর্টিকেল এ সিদরাতুল মুনতাহা আয়াত নাম রাখা যাবে কিনা, সিদরাতুল মুনতাহা বিষয়ক ফজিলত ও সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি সে ব্যাপারে বিস্তারিত জানবো।

আজকের পোস্ট পড়ে আপনি যা যা জানতে পারবেনঃ

সিরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি 

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি তা জানতে অনেকেই অনেক জায়গায় খোঁজখবর নেন। সিদরাতুল মুনতাহা একটি সুন্দর ও আধুনিক নাম হতে পারে। সিদরাতুল মুনতাহা অর্থ সর্বোচ্চ সীমায় অবস্থিত একটি বড়ই গাছ। এখানে আমরা দেখতে পাচ্ছি সিদরাতুল মুনতাহা নামটি একটি ইসলামের সাথে গভীর সম্পর্কযুক্ত নাম।

সিদরাতুল মুনতাহা নামের আভিধানিক অর্থ সর্বোচ্চ শিখর, প্রবল ইচ্ছাশক্তি। এর অন্য একটি অর্থ হচ্ছে উচ্চ স্থান। সিদরাতুল মুনতাহা অর্থটি এভাবেও বলা যায় যে একটি বড়ই গাছ যা আসমানের সর্বোচ্চ স্তরে অবস্থিত। একটি সীমানা প্রাচীরের মতো অবস্থান। গবেষকরা বলেন, সিদরাতুল মানে পাতা ভরা ছায়াযুক্ত গাছ। মানুষের জ্ঞান, পাপ, পুণ্য, প্রার্থনা সবকিছুরই সীমারেখা সিদরাতুল মুনতাহা।

সিদরাতুল মুনতাহা আয়াত নাম রাখা যাবে কি

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি ও সিদরাতুল মুনতাহা আয়াত নাম রাখা যাবে কিনা তা জানতে অবশ্যই আমাদের সিদরাতুল মুনতাহা অর্থ সঠিকভাবে জানা প্রয়োজন। যা আমরা একটু আগেই পেরেছি। যেহেতু সিদরাতুল মুনতাহা একটি আরবি শব্দ তাই  সিদরাতুল মুনতাহা নামের আরবি অর্থ কি তা আমাদের সুস্পষ্টভাবে যানা জরুরি।

সিদরাতুল মুনতাহা আরবি, বাংলা, ইংরেজি সব অর্থই  সম্মান। এর অর্থ হচ্ছে সর্বোচ্চ শিখন, উচ্চ স্থান, কুল গাছ। সকল ধরনের অর্থ বিবেচনা করে দেখা যায় যে এই নামটি খুবই সুন্দর একটি অর্থ বহন করে।  তাই সিদরাতুল মুনতাহা আয়াত নাম রাখা অবশ্যই সম্ভব।

সিদরাতুল মুনতাহা নামের ইসলামিক অর্থ 

এখন আমরা সিদরাতুল মুনতাহা আরবি অর্থ কি এবং এ বিষয়ক আরো আলোচনা করে নাম বিষয়ক সন্দেহ দূর করব। প্রথমেই বলে রাখি যে সিদরাতুল মুনতাহা একটি ইসলামিক নাম এবং এর অর্থ হচ্ছে আকাশে সর্বোচ্চ প্রান্তে অবস্থিত একটি বড়ই গাছ।এবং এটি খুবই সুন্দর একটি ইসলামিক নাম। যা কিনা আরবি ভাষা থেকে প্রাপ্ত।

ইসলামের একটি খুব সুন্দর ঘটনা থেকে এই আয়াত টির প্রাপ্তি। এই শব্দটি আরবিতে سدرة المنتهى লেখা হয়। বিভিন্ন দেশে এই নামটি ব্যবহার করা হয়। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য ইন্দোনেশিয়া, ইরাক, আরব,  জর্ডান ও কুয়েত। মূলত এই নামের মর্যাদা সম্পর্কিত ইসলামিক দেশগুলতে যারা বসবাস করেন তারা সকলেই  এই নাম ব্যবহারে আগ্রহী হয়ে থাকেন। 

ইসলামী শরীয়া মতে সিদরাতুল মুনতাহার সম্মান অনেক উপরে।  মূলত সপ্তম  আসমানে সর্বোচ্চ সীমানাতে সিদরাতুল মুনতাহার অবস্থান। এটি এমন একটি জায়গা যেখানে আল্লাহর সৃষ্টি সকল কিছুর শেষ সীমানা। আজ পর্যন্ত কোন ফেরেশতাই যেতে পারেননি। শুধুমাত্র  একজন আমাদের নবী করীম (সাঃ) এই সীমানার বাইরে গিয়ে আল্লাহর সাথে সাক্ষাত করেছিলেন।

সিদরাতুল মুনতাহা নামের ইংরেজি অর্থ

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি বাংলায় আমরা অনেকেই তা জানতে চাই এবং ইংরেজি অর্থ ও আমরা জেনে রাখতে আগ্রহ প্রকাশ করি। সিদরাতুল মুনতাহা নামের ইংরেজি অর্থ হল End of plum tree.

সিদরাতুল মুনতাহা নামটি ব্যবহার করলে এর ইংরেজি বানানটি এরকম হবে।

  • Sidratul Muntaha
  • Sidrat Al-Muntaha
  • Sedratol Montaha
  • Cidratul Muntaha
  • Seydratul Montaha

সিদরাতুল মুনতাহা কি মেয়েদের নাম

সিদরাতুল মুনতাহা মেয়েদের নাম। সিদরাতুল মুনতাহা বিষয়ক উপরের তথ্যগুলো থেকে আমরা এটা বুঝতে পারি যে, 

নামঃ সিদরাতুল মুনতাহা
অর্থঃ আকাশের শেষ প্রান্তের বড়ই গাছ
ইসলামিক নামঃ হ্যাঁ
লিঙ্গঃ মেয়ে
উৎপত্তিস্থলঃ আরবি
আধুনিক নামঃ হ্যাঁ
শব্দঃ ২ টি

সিদরাতুল মুনতাহা নামটি কাদের জন্য 

সিদরাতুল মুনতাহা  নামটি শুনে বুঝা যাচ্ছে এটা একটি মেয়েদের নাম। কিন্তু আপনারা ছেলে বাচ্চার নাম হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে সিদরাতুল না রেখে সিদরাত শব্দটি ব্যবহার করতে  পারেন। এটিও একটি আধুনিক ছেলেদের নাম।

সিদরাতুল মুনতাহা নামের মেয়েদের চরিত্র 

সিদরাতুল মুনতাহা একটি আধুনিক নাম হলেও যেহেতু অর্থের উপর ভিত্তি করে ইসলামিক নাম গুলো রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাই সিদরাতুল মুনতাহা যেহেতু একটি অর্থপূর্ণ আরবী শব্দ সেজন্য এই নামের ব্যবহার করা যেতেই পারে। আর অবশ্যই এত সুন্দর নামের মেয়েরা অবশ্যই সুন্দর মনের অধিকারী হবে। এই নামের অর্থের সাথে সম্পৃক্ত তাদের মানসিকতাও শান্ত এবং উদার হবে।

সিদরাতুল মুনতাহা দিয়ে মেয়েদের আরো কিছু সুন্দর নাম অর্থসহ

সিদরাতুল নাম এর অর্থ কি তা জিজ্ঞাসা করলে বলা যায়, এর অর্থ হচ্ছে বরই বৃক্ষ। এবং মুনতাহা নামের ইসলামিক অর্থ হচ্ছে আসমানের শেষ প্রান্ত। সুতরাং সিদরাতুল মুনতাহা নামের আরবি অর্থ হচ্ছে আসমানের শেষ প্রান্তের বড়ই বৃক্ষ।  

সিদরাতুল মুনতাহা দিয়ে মেয়েদের আরো কিছু সুন্দর নাম অর্থসহ

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ আমরা এখানে আলোচনা করলাম। সিদরাতুল মুনতাহা নামটির অর্থটি যেহেতু সুন্দর তাই এর সাথে যুক্ত করে  আরো কিছু নামের ধারণা অর্থসহ নিচে দেওয়া হলো।

নাম নামের অর্থ
সিদরাতুল মুনতাহা রুহি আসমানের শেষ প্রান্তের পবিত্র বড়ই বৃক্ষ
জান্নাতুল মুনতাহা আসমানের শেষ প্রান্তের বাগান
সিদরাতুল মুনতাহা সাফা আসমানের শেষ প্রান্তের বিশুদ্ধ বড়ই বৃক্ষ
সিদরাতুল মুনতাহা সুলতানা আসমানের শেষ প্রান্তের রাণী বৃক্ষ
সিদরাতুল মুনতাহা সাবেরা আসমানের শেষ প্রান্তের মহানুভব বৃক্ষ

সিদরাতুল মুনতাহা বিষয়ক পাঠকদের প্রশ্ন

সিদরাতুল মুনতাহা অর্থ কি?

 সিদরাতুল মুনতাহা অর্থ আসমানের শেষ প্রান্তের বড়ই বৃক্ষ।

সিদরাতুল শব্দের অর্থ কি?

সিদরাতুল শব্দের অর্থ বরই বৃক্ষ।

সিদরাতুল মুনতাহা কোন গাছ? 

সিদরাতুল মুনতাহা বরই গাছ।

ইসলামে মুনতাহা কি?

 ইসলামে মুনতাহা হচ্ছে সাত আসমানের সর্বোচ্চ সীমা।

ছেলে ও মেয়ের নাম সিদরাতুল রাখা যাবে কি?

ছেলে ও মেয়ের নাম সিদরাতুল রাখা যাবে। সে ক্ষেত্রে ছেলের নামটা একটু পরিবর্তন করে সিদরাত রাখলে ভালো শোনাবে। কিন্তু অর্থ একই থাকবে।

সিদরাতুল মুনতাহা নামের ব্যক্তিবর্গ 

সিদরাতুল মুনতাহার নামের অর্থ খুবই সুন্দর এবং খুবই প্রচলিত এবং একটি খুবই প্রচলিত এবং ব্যবহৃত আরবি নাম। সিদরাতুল মুনতাহা নামের খ্যাতনামা ব্যক্তি এখন সরাসরি না পাওয়া গেলেও ভবিষ্যতে এরকম সুন্দর নামের কোন ব্যক্তি আসবেন না তা নয়। 

একটি সুন্দর নামের অধিকারী ব্যক্তি অবশ্যই জ্ঞান বিজ্ঞান আচরণ সবকিছু নিয়েই খ্যাতনামা। আর যেহেতু এটি একটি আধুনিক নাম তাই অতীতে এই নামে প্রচলন খুব একটা ছিল না। তাই সময় হলে অবশ্যই আপনারা সিদরাতুল মুনতাহা নামের খ্যাতনামা ব্যক্তিদের খুঁজে পাবেন। 

নবীজির সিদরাতুল মুনতাহা সাক্ষাৎ

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ বা সিদরাতুল মুনতাহা কি এবং সিদরাতুল মুনতাহার ইতিহাস আমাদের অবশ্যই জানা জরুরী। আমাদের নবী করীম (সাঃ) সিদরাতুল মুনতাহা অতিক্রম করেন। এবং আল্লাহ তায়ালার সাথে সাক্ষাৎ করার সুযোগ পান। এই ভ্রমণটাকে বলা হয় লাইলাতুল মিরাজ। মিরাজের রাত খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি রাত।

ইসলাম ধর্মীয় গুরুত্বপূর্ণ দিনগুলোর মধ্যে এটি অন্যতম।  এই রাতে সারারাত ধরে নামাজ পড়ার এবং আল্লাহর কাছে চাওয়ার অনেক সুযোগ রয়েছে।

সিদরাতুল মুনতাহা ভ্রমনের ঘটনা 

আল্লাহতালার ইচ্ছা অনুযায়ী আল্লাহর ফেরেশতা জিব্রাইল আলাইহি ওয়াসাল্লাম মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে একদিন রাতে জানান যে আল্লাহ তাআলা নির্দেশ দিয়েছেন মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম কে তার কাছে পাঠানোর জন্য। আল্লাহ তাআলা তার সৃষ্টির বিষয় দেখাতে চান এবং তার মর্যাদা বাড়িয়ে দিতে চান।

জিব্রাইল আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সাথে নবীজি প্রথমে কাবা ঘরে গিয়ে তাওয়াফ করেন এবার ওখানে কিছুক্ষণ বসে থাকার পর বুরাকে নবীজিকে আল্লাহর তায়ালার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হয়। এবং এই দিনে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অনেক জায়গায় নামাজ আদায় করেন।

এবং এর মধ্যে তিনি বায়তুল মুকাদ্দাসে নামাজ আদায় করেন যেখানে তার পেছনে এক লক্ষ ২৪ হাজার জন নবী রাসূল অংশগ্রহণ করেছিলেন। 

পরবর্তীতে তিনি যখন সপ্তম আসমানে মুনতাহার কাছে পৌঁছান তখন জিব্রাইল আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন তিনি আর যেতে পারবেন না। মহানবীকে একাই যেতে হবে। এবং মহানবী একা গিয়েই আল্লাহর সাথে সিদরাতুল মুতাহা পার করে সাক্ষাৎ করে আসেন। 

সিদরাতুল মুনতাহা নিয়ে ইসলামের বাণী

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি তা আমরা আমাদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কুরআনে বিভিন্ন সূরার মাধ্যমে এর উল্লেখ পায়।

সিদরাতুল মুনতাহা নিয়ে ইসলামের বাণী

কুরআন শরীফের সূরা আন নাজম ৫৩ নম্বর অধ্যায়ে বলা আছে, 

  • তিনি যা দেখেছিলেন তাতে সন্দেহ আসেনি। 
  • সাত আসমানের সবচেয়ে উঁচু সীমার লোট গাছে।
  • সে অবশ্যই সর্বোচ্চ নিদর্শন দেখেছে।
  • যার কাছেই আছে বাস যোগ্য স্থানের বাগান।

কোরআন শরীফের সূরা  সাবা ৩৯ নম্বর অধ্যায়ে উল্লেখ করা আছে, 

  • এভাবে আমরা তাদের তাদের জন্য শাস্তি দিই - আমরা কি যারা আল্লাহকে মানেনি ছাড়া কাউকে শাস্তি দিব?
  • শিবার লোকদের জন্য থাকার একটি নিদর্শন আছে -  দুইটি বাগান,একটি ডান দিকে একটি বাম দিকে।  
  • আর আল্লাহ যা দিয়েছেন তা থেকে খাও এবং আল্লাহর উপর সন্তুষ্ট প্রকাশ কর।

কোরআন শরীফের সূরা ওয়াকিয়া এর পান্ন নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে,

  • প্রচুর ফল 
  • প্রবাহিতর পানি
  • বিশাল ছায়া 
  • উন্নত আধুনিকতার ছোঁয়া 
  • আর ডানদিকের অবস্থানকারীরা কতইনা সুখে থাকবেন।

নবীজির বাইতুল মামুন ও সিদরাতুল মুনতাহা দর্শন

পৃথিবীতে আল্লাহতালাকে সম্মানিত করার জন্য একটি ঘর রয়েছে তেমনি আসমানেও আল্লাহ তালাকে সম্মানিত করার জন্য একটি ঘর আছে। যেমন দুনিয়ার কাবা শরীফ ইবাদাতের স্থান। ফেরেস্তেতাদের জন্য আল্লাহর ইবাদতের স্থান রয়েছে। আর ওই স্থানকেই বাইতুল মামুন বলা হয়। এই স্থানটি ফেরেশতাদের ইবাদাত করার স্থান।

এই স্থানটি আল্লাহতালা এমন ভাবে তৈরি করেছেন যা কিনা আল্লাহতালার ইবাদত করার স্থান, কাবা শরীফের ঠিক সরাসরি উপরে সপ্তম আসমানে অবস্থিত।  

মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাঃ যেদিন মিরাজে জান সেদিন তিনি বায়তুল মামুন দেখতে পান। এবং তিনি দেখেন ইব্রাহিম আলাইহি ওয়াসাল্লাম বাইতুল মামুনের দেয়ালে হেলান দিয়ে বসে আছেন। ইব্রাহিম আলাইহিস সালাম পৃথিবীর কাবা ঘরের নির্মাতা। মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে জিব্রাইল আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন এটি বায়তুল মামুন যেখানে প্রতিদিন ৭০ হাজার ফেরেশতা নামাজ আদায় করেন।

এরপরই আল্লাহতালার নির্দেশ অনুযায়ী মোহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরও উপরে যান এবং সিদরাতুল মুনতাহা দেখতে পান। যেখানে জিব্রাইল আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর ও যাওয়ার কোন নির্দেশ নেই।

নবীজির সিদরাতুল মুনতাহা দর্শনে অমুসলিমদের মন্তব্য

নবীজি হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর সিদরাতুল মুনতাহা যাওয়া এবং মিরাজ করার ব্যাপারে অমুসলিমদের অনেক মন্তব্য রয়েছে। মূলত ইস্লামকে বিশ্বাস করার জন্য আল্লাহতালার কাজগুলোকে বিশ্বাস করাটাই হচ্ছে ঈমান। তাই আমাদের মুসলিম হওয়ার জন্য আল্লাহ তায়ালা সব কাজকে বিশ্বাস করা জরুরী। এতে ঈমান মজবুত হবে। এজন্য অনেক অমুসলিম এটা বিশ্বাস করতে চান না যে মিরাজ সত্যি ছিল।

একটি বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা দিলেই সেটার একটা ধারণা পাওয়া সম্ভব। সেটি হচ্ছে মহানবী সাঃ বুরাকের উপর গিয়েছিলেন। এবং বলা হয়েছিল বুরাক হচ্ছে বিদ্যুতের তৈরি। এর থেকে আমরা বুঝতে পারি মহানবী বিদ্যুতের মত দ্রুতগতিতে ভ্রমণ করেছিলেন। এবং আধুনিক বিজ্ঞান এটা বলে যে বিদ্যুৎ বা রেডিও ওয়েব বা বিভিন্ন ইলেকট্রো ম্যাগনেটিক রেডিয়েশন মহাবিশ্বে খুব দ্রুত ছড়ায়। যা কিনা প্রতি সেকেন্ডে এক মাইল। 

সিদরাতুল মুনতাহা বিষয়ে পাঠকের প্রশ্ন

সিদরাতুল মুতাহার বাইরে কি আছে?

 সিদরাতুল মুতাহার বাইরে আল্লাহতালার সাথে সরাসরি সাক্ষাৎ করার সুযোগ  রয়েছে।

বাইতুল মামুন কি?

বাইতুল মামুন হচ্ছে ফেরেশতাদের  আল্লাহকে ইবাদাত করার একটি স্থান।

নবীজি কি আল্লাহ তায়ালার সাথে দেখা করেছিলেন?

হ্যাঁ বলা আছে নবীজি আল্লাহর সাথে দেখা করেছিলেন

সিদরাতুল মুনতাহা কখন হয়েছিল?

সিদরাতুল মুনতাহা মহানবী সাঃ দেখেছিলেন মিরাজের রাতে।

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি এ বিষয়ে লেখক এর মন্তব্য

সিদরাতুল মুনতাহা নামের অর্থ কি আমরা তা সকলেই জানতে পেরেছি। এটা যে একটি সুন্দর অর্থপূর্ণ শব্দ এবং বিভিন্ন নামে ব্যবহার করা সম্ভব আমরা তা বুঝতে পেরেছি। আমরা এখানে জানতে পারলাম যে সিদরাতুল মুনতাহার ইতিহাস কি। তাই মুসলমানরা সিদরাতুল মুনতাহার তাৎপর্য নিয়ে অবশ্যই সন্তুষ্ট হবেন। 

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে পাঠক রা সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন মুনতাহা আয়াত নাম রাখা যাবে কিনা। সিদরাতুল মুনতাহা ইসলামের জন্য কতটা অর্থ বহন করে আসছে। এটি একটি সম্মানজনক স্থান। এবং এর অর্থ জানার মাধ্যমে তা পুরোপুরি প্রকাশ পেয়েছে।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url